স্কুলের ইতিহাস শিক্ষাই আলো এবং মূর্খতাই অন্ধকার । এই স্লোগানকে সামনে রেখে গোহাইলকান্দি, গন্দ্রপা , নিজকল্পা , বাদেকল্পা , বাড়েরা , উত্তর দাপুনিয়ার ও সানকিপাড়া এই বিশাল জনগোষ্টীর জন্য চারটি সরকারী প্রথমিক বিদ্যালর থাকলেও কোন উচ্চ বিদ্যালর না থাকায় অত্র বিশাল এলাকার ছেলে মেয়েরা প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে প্রায় ৮০% শিক্ষার্থী শহরে এসে মাধ্যমিক শিক্ষা গ্রহনে ইচ্ছা হারিয়ে ফেলে । এর পিছনে নানাবিধ কারণ ও ছিল । কারণগুলোর মাধ্যে দূর্গম যোগাযোগ ব্যাবস্থা , অশিক্ষা ও দারিদ্রতা ও কুসংস্কারে বিশ্বাস ইত্যাদি অন্যতম । এই বিশাল এলাকার জনগোষ্টীকে অন্ধকারে রেখে অত্র এলাকা তথা দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয় ভেবে মাধ্যমিক শিক্ষা বিস্তারে অত্র এলাকার বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, সমাজসেবক জনাব মোঃ আব্দুল খালেক মাষ্টার সাহেব গোহাইলকান্দি এলাকায় একটি উচ্চ বিদ্যালয় স্থাপন করার ব্যাপারে উদ্যেগ গ্রহণ করেন। তিনি এলাকার জনসাধারনের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে একটি ১৫ সদস্য বিশিষ্ট স্কুল প্রতিষ্টা কমিটি গঠন করেন। উক্ত কমিটি তাদের একান্তিক আগ্রহ ও নিরলস প্রচেষ্টায় গোহাইলকান্দি এলাকায় “গোহাইলকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়” নামে একটি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্টান ৫২ শতাংশ জমির উপর ভিত্তি রচিত হয়। জনাব মোঃ আব্দুল খালেক মাষ্টার এই ৫২ শতাংশ জমি বিদ্যালয়ের নামে দান করেন এবং বিদ্যালয়ের প্রতিষ্টাতা হিসেবে বিবেচিত হন । পরবর্তীতে তিনি আরও ২৪ শতাংশ জমি দান করেন । ৫ মার্চ ১৯৮৭ সালে বিদ্যালয়টির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপিত হয় এবং ১৯৮৮ সালে ১লা জানুয়ারী থেকে ৬ষ্ট থেকে ৮ম শ্রেনী পর্যন্ত পাঠদান কার্যক্রম শুরু করে । পরে ১৯৮৯ সালে জুনিয়র স্কুল হিসেবে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক পাঠদানের অনুমতি তথা প্রাথমিক স্বীকৃতি লাভ করে । পরবর্তীতে জনাব আলাউদ্দিন সাহেব ১০ শতাংশ জমি অত্র স্কুলের জন্য দান করেন এবং উক্ত স্কুলে জনাব ওয়াজির উদ্দিন সরকার আরও ৬৬ শতাংশ জমি দান করে আজীবন দাতা হিসেবে গণ্য হন । ১৯৯১ সালে স্কুলটি ঢাকা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক উচ্চ বিদ্যালয় হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে । ১৯৯৩ সালে স্কুলটি এমপিও ভূক্ত হয়। প্রতিষ্টানটিতে বর্তমানে সরকারী অর্থায়নে ৮ কক্ষ বিশিষ্ট একটি দ্বিতল ভবন , এডিপি ময়মনসিংহ , ওয়াল্ড ভিশন বাংলাদেশ কর্তৃক ৪ কক্ষ বিশিষ্ট দুইটি হাফ বিল্ডিং ও আলাদা একটি কক্ষ সহ মোট নয়টি কক্ষ এবং নিজস্ব অর্থায়নে ১ টি কক্ষ সর্বমোট ১৮ টি কক্ষ রয়েছে। কম্পিটার কাউন্সিল কর্তৃক দেয়া ৫ টি কম্পিউটার নিয়ে একটি সুসজ্জিত কম্পিউটার ল্যাব রয়েছে। বিদ্যালটিতে ১৫ জন শিক্ষক ১ জন করনিক ও ৩ জন ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী রয়েছে । শিক্ষা বান্ধব, সুন্দর ও মনোরম পরিবেশের মাধ্যমে শিক্ষকদের আন্তরিকতা সহিত পাঠদান কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে ।